সবচেয়ে উত্তম সাদকা হল মানুষকে পানি পান করানো, একটি সহীহ হাদীস

আবূ হুরায়রা (রা) থেকে বর্ণিতঃ রসূলুল্লাহ্ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, এক ব্যক্তি পথ চলতেছিল। সে খুব বেশি পিপাসায় কাতর হয়ে পড়ল। একটি কূপ দেখে উহাতে নেমে পানি পান করল। এরপর কূপ হতে বেরিয়ে এসে দেখল যে, একটি কুকুর পিপাসায় কাতর হয়ে হাঁপাচ্ছে এবং কাদা লেহন করতেছে। লোকটি (মনে মনে) বলল, আমার মতো এই কুকুরটিও পিপাসায় কাতর হয়েছে।

অতঃপর লোকটি (পুনরায়) কূপে নেমে তার মোজায় পানি ভর্তি করে মুখ দিয়ে ধরে নিয়ে বের হয়ে এল। [১] অতঃপর লোকটি কুকুরটিকে পানি পান করাল। (তার এই কাজে) আল্লাহ্ তা‘আলা তার প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে তাকে মাফ করে দিলেন। সাহাবীগণ আরয করলেন, ইয়া রসূলাল্লাহ্! জানোয়ারকে (জীবজন্তুকে) পানি খাওয়ালে আমাদের সওয়াব হবে কি ? রসূলুল্লাহ্ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, নিশ্চয়ই! প্রাণী মাত্রকেই পানি পান করানোর মধ্যে সওয়াব আছে। [২] (বুখারী ২৩৬৩, মুসলিম ২২৪৪)

ফুটনোটঃ
[১] চামড়ার মোজায় পানি ভরে রাখা যায়। কূপের ভিতরে গিয়ে মোজায় পানি নিয়ে বের হতে অসুবিধা হয় বিধায় পানি ভর্তি মোজাকে হাতে রাখতে পারেনি, বরং মুখে করে আনতে হয়েছে।

[২] পিপাসার্ত মুসলমান হোক কিংবা কাফের হোক অথবা অপর কোন জীবজন্তু হোক, তাদের প্রতি সদয় হওয়া সওয়াবের কাজ- মানবীয় দায়িত্বও বটে। সৃষ্টির প্রতি দয়া প্রদর্শন এমনই ব্যাপার, যা আল্লাহর কাছে অত্যন্ত পছন্দনীয়। উহা কখনও বিফল হয় না। তবে ঐ সমস্ত জীবজন্তু এই নিয়মবহির্ভূত যারা মানুষের শত্রু। যেমন সাপ, বিচ্ছু, বাঘ, ভল্লুক ইত্যাদি। এইগুলোর প্রতি সদয় হতে নেই, বরং এইগুলোকে যেখানেই পাওয়া যায় মেরে ফেলাই সওয়াবের কাজ। অন্যথায় এরা মানুষের প্রাণ সংহার করবে।

মুয়াত্তা ইমাম মালিক, হাদিস নং ১৬৭১
হাদিসের মান: সহিহ হাদিস

Leave a Reply

Your email address will not be published.